যে দেশে অস্বাভাবিক মৃত্যুই স্বাভাবিক

বাংলাদেশ নামক দেশটার সৃষ্টিই তো হলো লাখো মানুষের অস্বাভাবিক মৃত্যুর মধ্য দিয়ে। সে থেকেই আমাদের দেশের সকল অস্বাভাবিক মৃত্যুই যে মানুষের কাছে স্বাভাবিক। প্রতিদিন কতগুলো অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটছে আমাদের ছোট্ট এই ভূখণ্ডে। কেউ যেন এই সকল মৃত্যু নিয়ে কোন কথাও বলতে চায় না।

নৌকা ডুবিতে ১৭ টা প্রাণ চলে গেল। ১৭টা প্রাণ! আমাদের কাছে এইটার কোন মূল্য আছে? একজন সেনবাহিনীর সাবেক মেজরকে গুলি মেরে ফেলা হলো আমাদের কোন মাথা ব্যথা আছে? প্রতিদিনই কোন হানাহানি, রাজনৈতিক মৃত্যু, পারিবারিক কলহে মৃত্যু হয়েই যাচ্ছে।  আমরা আমাদের একটা ফেসবুক পোষ্ট দিয়ে দায় সারছি। যেন এইটা কোন বিষয়ই না। যেন বাংলাদেশ এই সকল অস্বাভাবিক মৃত্যতে কারো কিছু যায় আসে না। দেখে মনে হয়, আমি তো বেঁচে আছি। আর কার কি হবে সেটা আমার ভাবার দরকার কি? আসলে কি ভাবার দরকার নেই? এইটা কি বেঁচে থাকা? 

ই- পাসপোর্ট কিভাবে করবেন? 

আমরা সব সময় বলি পশ্চিমা বিশ্বে পাপাচারে লিপ্ত। সেখানে সেক্স অপেন। সেখানে গে, লেসবিয়ান প্রাক্টিস করা হয়। তারা পৃথিবীর সবচেয়ে বাজে লোক। কিন্তু আমরা? আমরা তো মানুষের জীবনকেই পিষে মেরে ফেলতে পারি। আমরা ধর্মের দোহাই দিয়ে, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের দোহাই দিয়ে খুন করতে পারি। তারপরও আমরা সাধু।   

আমাদের পুলিশ চাইলে ক্রস ফায়ার দিতে পারে, আমাদের রাজনৈতিক মত বিরোধ হলে অন্যকে কত সহজে খুন করতে পারি। আমরা চাইলে চোর অপবাদ দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলতে পারি। আমাদের কাউকে মেরে ফেলার জন্য কখন ভাবতে হয় না। আমাদের দেশে খুন করে আনন্দ পাওয়া যায়, এখানে খুন করলে খুনিকে বাঁচানোর জন্য তদবির করা যায়। এখানে জনগণের টাকা মপরে দিয়ে দেশ থেকে ভেগে যাওয়া যায়। আমাদের এই সিস্টেম একদিনে তৈরি হয় নি। আমাদের এই সিস্টেম একজনে তৈরি করে নি। আমাদের টই সামাজিক অবক্ষয়ের পিছনে আমাদের সকলের ভূমিকা আছে। আমারা সকলে এই অবক্ষয়ের জন্য দায়ি। আমরা খামোশ হতে শিখেছি। আমরা শুধু নিজে সুখে থাকার চেষ্টা করছি। কিন্তু সুখ বিষয়টা হলো সমষ্টিগত। আপনি সুখে থাকতে হলে আপনার চারপাশের মানুষ গুলোকে আগে সুখে রাখতে হবে। আপনি ভালো থাকতে হলে এখনই অন্যয়কে অন্যায় নলতে শিখতে হবে।

(Visited 15 times, 1 visits today)
Share this story with your friends:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *