এত আলোর ভিড়ে আমরা এখনও অন্ধকারে

পৃথিববীর যে প্রান্তেই যান নোয়াখালীর মানুষের সমালোচনা শুনতে পাবেন। প্রায়ই ভাবি, নোয়াখালীর মানুষের এত সমালোচনা কেন? উত্তর একটাই সফল মানুষের সংখ্যা বেশী। আরো সুনির্দিষ্ট করে বললে, নোয়াখালীর সফল শিল্পপতিদের অনেকেই এক সময় নিদারুণ কষ্ঠ করে জীবন যাপন, তাদের অতীতের অবস্থানের সাথে আজকের অবস্থান অনেকেই মিলাতে পারে না।তাই সমালোচনাই তাদের ভরসা।

শিল্পপতিদের অনেকেই নোয়াখালীর

বাংলদেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপতির মধ্যে অনেকের জন্মস্থান নোয়াখালীতে। ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের  বিভিন্ন জেলায় বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন  কৃতি সন্তানরা। দেশ বিদেশে  অর্জন করেছেন সুখ্যাতি। এই সকল শিল্প প্রতিষ্ঠান  লাখ লাখ বেকারের কর্মসংস্থানের সূযোগ সৃষ্টি করেছে। অবদান রাখছে জাতীয় অর্থনীতিতে। সৃষ্টি করছে বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশের বাজার। অথচ, তারাই নিজ জেলায় আলোকিত করতে পারছে না। নোয়াখালীর শিল্পপতিরা তাদের নিজ জেলা সম্পর্কে কি নেতিবাচক মনোভাব পোষণ করেন?      

আমাদের আলোর কয়েকটি আলোর শিখা 

নোয়াখালীর কয়েক ডজন শিল্পপতি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সূ-পরিচিত। তারমধ্যে  কয়েকটি শিল্পগ্রুপ হচ্ছেঃ বেঙ্গল গ্রুপ, আবুল খায়ের গ্রুপ, পারটেক্স গ্রুপ, গ্লোব গ্রুপ, এজি গ্রুপ, সানমন গ্রুপ, আজিম গ্রুপ, এস এ গ্রুপ, ম্যাক্স গ্রুপ, সানজি গ্রুপ, ইফাদ গ্রুপ, তমা গ্রুপ, জেএমএস গ্রুপ, সম্রাট গ্রপ, এন জামান এন্ড কোং ইত্যাদি। 

পারটেক্স ও গ্লোব গ্রুপসহ আরো কয়েকটি শিল্পগ্রুপর একাধিক গ্রুপ রয়েছে। যেমন আবুল খায়ের গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে, শাহ সিমেন্ট, ঢেউটিন, একেএস স্টীল, কনডেন্স মিল্ক ও শিলং চা ইত্যাদি

ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ চক বাজারে বেশীর ভাগ বড় ব্যবসা নোয়াখালীর ব্যবসায়ীদের দখলে। দেশের আনাছে কানাছে গড়ে উঠা বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান দেশের অর্থনীতিকে চাঙা রাখতে, সৃষ্টি করছে লক্ষ লক্ষ কর্মসংস্থান। সুনাম বড়ে আনছে দেশ বিদেশে।

নিজ ঘর থেকে গেল অন্ধকারে

আমাদের ব্যবসয়ীদের অবদানে যেখানে পুরো বাংলাদেশ পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে সেখানে নিজ ঘরে চেরাক (বাতি) দেওয়া যেন তাদের কাছে কোন মানে রাখে না। যেখানে প্রচুর সম্ভাবনা থাকার সত্বেও কেউ গড়ে তুলছে না শিল্প কারখানা। পিছিয়ে পড়ছে জেলার উন্নয়ন, আর কর্মহীন মানুষ বাড়ছে প্রতিনিয়ত।   কিছু ব্যবসায়ীক প্রতিষৃঠান এক সময় গড়ে উঠলেও এখন সেগুলোও বিলীনের পথে। যেমন-১৯৬৫ সালে  গড়ে ওঠা দেশের সর্ববৃহৎ বেসরকারী পাটকল ডেল্টা জুট মিল। এটি প্রতিষ্ঠা করেন বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব আবদুর রব। কিন্তু বর্তমানেে সে প্রতিষ্ঠানের   করুন পরিণতির কথা সকলে জানা। 

আরো পড়ুনঃ কমলার দিঘীর গল্প

আমরা চাই আমাদের শিল্পপতিরা যেভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, দেশের বেকার সমস্যা নিরসনে তাদের প্রতিষ্ঠান যভাবে কাজ করছে সেভাবে তারা নোয়াখালীর জন্যও কাজ করুক। তারা পর্যাপ্ত শিল্পকারখানা স্থাপনের উদ্যোগ নিক।  আমরা আশা করি নোয়াখালীর শিল্পপতিরা জেলার উনৃনয়নে কাজ করবে।

(Visited 67 times, 1 visits today)
Share this story with your friends:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *